শুধু সর্দি-জ্বর নয়, পেটের গোলমালও বাধাচ্ছে ওমিক্রন

পেটের গোলমালও বাধাচ্ছে ওমিক্রন।

সারা দেশে ওমিক্রন আক্রান্তের সংখ্যা চার হাজার পেরিয়েছে। চিকিৎসকদের মতে, ডেল্টা ভাইরাসের তুলনায় ওমিক্রন তুলনামূলক ভাবে কম সক্রিয়। তাই ওমিক্রনের আক্রান্তদের হালকা জ্বর, গলা ব্যথা, নাক থেকে জল পড়া, খুসখুসে কাশি ইত্যাদি মৃদু উপসর্গ দেখা দিচ্ছে।

এর পাশাপাশি জ্বর নেই অথচ আপনি যদি বমি বমি ভাব বা পেট ব্যথায় ভুগে থাকেন, তাহলে সেগুলিও ওমিক্রন সংক্রমণের কারণে হতে পারে বলে মত বিশেষজ্ঞদের।

চিকিৎসকরা বলছেন, জ্বর-সর্দি-কাশি বা শ্বাসকষ্টের লক্ষণ ছাড়াও যদি হঠাৎই পেটের গোলমাল শুরু হয় সেক্ষেত্রে কোভিড পরীক্ষা করিয়ে নেওয়া উচিত।

ওমিক্রন আপনার শ্বাসযন্ত্রকে প্রভাবিত করার পাশাপাশি পেটের গোলমালেরও কারণ হতে পারে। এমনকি, যাঁরা দুটি করে টিকা নিয়েছেন তাঁদের ক্ষেত্রেও এই উপসর্গগুলি লক্ষণীয়।

ওমিক্রনের নতুন কতগুলি উপসর্গ হল— বমি বমি ভাব, পেটে ব্যথা, বমি হওয়া, খিদে কমে যাওয়া এবং ডায়রিয়া।

তবে চিকিৎসকরা বলছেন, যেহেতু আক্রান্তদের মধ্যে প্রায় অধিকাংশ রোগীরা দুটি করে টিকা নিয়েছেন ফলে এই নতুন উপসর্গগুলি খুব একটা উদ্বেগজনক হয়ে উঠবে না।

অনেকেই জ্বর-সর্দি-কাশি বা পেটের গোলমালকে খুবই হালকা ভাবে নিচ্ছেন। যেটা একেবারেই ঠিক নয়। মাথায় রাখা প্রয়োজন যে সাধারণ ঠান্ডা লাগার ক্ষেত্রে কিন্তু পেটে ব্যথা, বমি বমি ভাব, খিদে হ্রাস ইত্যাদি লক্ষণগুলি দেখা যায় না।

তাই এই রকম উপসর্গ দেখা দিলে সবার আগে পরীক্ষা করিয়ে নিন। পাশাপাশি বেশি করে জল খান। স্বাস্থ্যকর এবং হালকা খাবার খান। মশলাদার খাবার ও অ্যালকোহল এড়িয়ে চলুন।

বমি বমি ভাব বা পেট ব্যথার মতো লক্ষণগুলি দেখা দিলে কী ভাবে প্রতিরোধ করবেন?

১) আধ সিদ্ধ খাবার খাবেন না। ভাল করে রান্না করে তবেই খান।

২) হাতের স্বাস্থ্যবিধি বজায় রাখুন। রান্না বা খাওয়ার আগে ভাল করে সাবান দিয়ে হাত ধুয়ে নিন।

৩) অন্যের থালা থেকে খাবার তুলে এই পরিস্থিতিতে না খাওয়াই ভাল।

৪) ফল খাওয়ার আগে কিছুক্ষণ জলে ভিজিয়ে রেখে তারপর ভাল করে ধুয়ে নিয়ে খান।

৫) এই সময় বাইরের খাবার একেবারেই এড়িয়ে চলুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here